চিত্র বিচিত্র

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ!

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো- বিশ্বের বেশ কিছু দেশে অতি সাধারণ কিছু জিনিস আমদানি বা রপ্তানি করা নিষিদ্ধ, হতে পারে জেল জরিমানাও। আর এই জিনিসগুলো আমাদের কাছে অতি সাধারণ! যা দেখে আপনার বিস্মিত না হয়ে উপায় নেই। চলুন দেখে আসা যাক-

১. সুইজারল্যান্ডঃ নকল সুইস ঘড়ি

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ!

© sterh_tomsk70

২০০৮ সাল থেকে, নকল সুইস ঘড়ি জব্দ এবং ধ্বংস করা হয়!

২. তিউনিসিয়াঃ হেনা(মেহেদি)

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ!

© SandeepHanda / Pixabay

তিউনিসিয়াতে, আপনি যে কোন উপায়ে হেনা আমদানি বা রপ্তানি করতে পারবেন না। কৌশলে মাদক দ্রব্য পাচার বন্ধ করতে সম্ভবত এই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।

৩. চীনঃ লাইটার

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ!

© badsmoking

চীনা আইন অনুযায়ী, আপনি আপনার ব্যাগ বা লাগেজে লাইটার বহন করতে পারবেন না। এমনকি ট্রানজিট ফ্লাইটে থাকাকালীন সময়েও আপনি লাইটার নিতে পারবেন না। তবে, যারা ধূমপান করেন তাদের চিন্তার কোন কারণ নেই, স্পেশাল স্মোকিং এরিয়াগুলোতে আপনি সবসময় লাইটার পাবেন।

৪. বার্বাডোজ: ছদ্মবেশ

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ!

© Alan Santana / Unsplash

বার্বাডোসে, আপনি অফিসিয়ালি সামরিক বাহিনীতে কর্মরত না হলে ছদ্মবেশে ধারণ করা নিষিদ্ধ। যদি আপনি পর্যটক হন তবে, আপনার ছদ্মবেশী পোষাক পরিবর্তন করতে হবে।

৫. কেনিয়া: প্লাস্টিক ব্যাগ

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ!

প্লাস্টিক ব্যাগ

২০১৭ সাল থেকে, কেনিয়াতে প্লাস্টিক ব্যাগ আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ। যদি আপনি এই আইন অমান্য করেন তবে, আপনাকে ৩৮০০০ ডলার জরিমানা এবং অনাদায়ে ৪ বছরের জেল হবে আপনার। কেনিয়াতে ভ্রমণকারী পর্যটকদের সাথে প্লাস্টিক ব্যাগ থাকলে সেগুলো এয়ারপোর্টেই ফেলে দেওয়া হয়, তবে আপনার সাথে কোন প্লাস্টিক ব্যাগ না রাখাই উত্তম।

৬. ভিয়েতনাম: মাছের সস

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ!

© cogotrice

ভিয়েতনামে মাছের সস রপ্তানি করা নিষিদ্ধ। এমনকি আপনি ডোমেস্টিক ফ্লাইটেও এই সস বহন করতে পারবেন না। অফিসিয়াল কোন নিষেধাজ্ঞা না থাকলেও, কাস্টমস অফিসার আপনার ব্যাগে এই সস পেলে তা ছুঁড়ে ফেলে দিবে। মাছের সসের তীব্র গন্ধ ও যেকোন সময় উপচে পড়ার ভয়ে বিমান কোম্পানিগুলো এই সস বহনে অপারগতা প্রকাশ করে।

৭. নাইজিরিয়া: অ্যাসিটিনোফিন পিলস, ফলের রস, খালি চালান

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ!

© Like_the_Grand_Canyon / Flickr © David Muir / Flickr

নাইজেরিয়ায় আপনি এসিটামিনোফিনের ঔষধ, ফলের রস বা খালি চালান নিতে পারবেন না। কিছু অন্যান্য অদ্ভুত নিষেধাজ্ঞাও রয়েছে দেশটিতে যে তালিকায় আমদানিকৃত স্পার্কিং ওয়াটার এবং মশারিও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে!

৮. সিসিলি: কোকো দে মের

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ!

© katich_shch

যদি আপনি সিসিলি থেকে কোকো দে মের রপ্তানি করতে চান তবে আপনাকে ১৫০- ২৫০ ডলার খরচ করতে হবে। তবে শর্ত রয়েছেঃ অনুমোদিত বিক্রেতা, স্পেশাল পাসপোর্ট কিংবা স্পেশাল স্টিকার ব্যতীত আপনি এটি ক্রয় করতে পারবেন না। তাও ২০ কিলোগ্রামের উর্ধ্বে নয়।

৯. থাইল্যান্ড: ভেপ, বুদ্ধ মূর্তি, ডুরিয়ান, এবং তরমুজ

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ!

© haiberliu / Pixabay © stevepb / Pixabay

থাইল্যান্ডের আইন অনুযায়ী ইলেক্ট্রনিক সিগারেট বা ব্যবহার করলে আপানার ৩০০ হাজার বাত(থাইল্যান্ডের মুদ্রা) জরিমানা ও অনাদায়ে ১০ বছরের বেশি জেল হতে পারে। ১৩ সেন্টিমিটারের চেয়ে বেশি বড় বুদ্ধ মূর্তি আপনি রপ্তানি করতে পারবেন না। এছাড়া অসহ্য গন্ধের কারণে ডুরিয়ান এবং যেকোন সময় চাপে বিস্ফোরিত হতে পারে এজন্য কাটা ছাড়া তরমুজ বহন করতে পারবেন না!

১০. নেদারল্যান্ডসঃ ফ্লাওয়ার বাল্ব

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ!

© congerdesign / Pixabay

নেদারল্যান্ডসে ৫ কেজির অধিক ফ্লাওয়ার বাল্ব রপ্তানি করলে সমস্যায় পড়তে হবে আপনাকে।

১১. নিউজিল্যান্ডঃ বাইসাইকেল, এবং কিছু প্রজাতির কুকুর

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ!

© Free-Photos / Pixabay © joseltr / Pixabay

নিউজিল্যান্ডে আপনি বাইসাইকেল নিয়ে প্রবেশ করতে পারবেন না, কারণ তারা ভিন্ন দেশের মাটি বা বীজ বাইসাইকেলে করে তাদের দেশে ঢুকে পড়তে পারে। ফলে তাদের দেশের উদ্ভিদের পরিবর্তন দেখা দিতে পারে! এছাড়াও, পশু, তাদের শুক্রাণু এবং ভ্রূণ আমদানি করার ব্যাপারে কঠোর নিয়ম রয়েছে।

নিম্নলিখিত কুকুর প্রজাতিগুলো আপনি নিউজিল্যান্ডে প্রবেশ করাতে পারবেন নাঃ আমেরিকান পিট বেল ট্রায়ার, ব্রাজিলিয়ান মাসস্টিফ, ডোগো আর্জেন্টিনো, টোসা ইনু এবং ক্যানারি মাস্টিফ। এছাড়াও, আপনি কিউই ওয়াইন রপ্তানি করতে পারবেন না।

বোনাসঃ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ডিপার্টমেন্ট দ্বারা জব্দকৃত অস্বাভাবিক কিছু জিনিস।

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ!

© tsa

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ!

© tsa

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ!

© tsa

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ!

© tsa

অতি সাধারণ এই জিনিসগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি বা রপ্তানি নিষিদ্ধ!

© tsa

আমাদের মধ্যে যারা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ভ্রমণে যেতে পছন্দ করি এই লেখাটি তাদের জন্য কাজে আসবে বলে আশা করি। আপনার মূল্যবান মন্তব্য কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না। সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ…

আপনার মতামত