অফিসের টেবিলে পা তুলে ঘুমান প্রধান শিক্ষক !

অফিসের টেবিলে পা –  রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার এক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক ক্লাস না করিয়ে টেবিলের উপর পা তুলে ঘুমানোর সত্যতা মিলেছে। শিক্ষার্থীরা যে যার মত দুষ্টুমী করে পুরো স্কুল মাতিয়ে রাখলেও তাতে ঐ শিক্ষকের ঘুমে কোন ব্যাঘাত ঘটছে না। এছাড়াও এমপিও আছে, মাস গেলেই বেতন পাওয়াতে খুব বেশী চিন্তাও নেই।

সোমবার দুপুরে উপজেলার সাদিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে এ চিত্র দেখা যায়। প্রধান শিক্ষক বাবর হোসেন টেবিলের উপর দুই পা দিয়ে নিঝুম ঘুমের ছবিটি ক্যামেরাবন্দী হয়। ওই বিদ্যালয়ের কিছু শিক্ষার্থীকে তাদের শিক্ষকদের উপস্থিতির বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে তারা সাংবাদিককে জানায়, প্রধান শিক্ষক স্যার বিশ্রাম করছেন এবং অন্য শিক্ষকরা কোথায় আছেন তাদের জানা নেই।

ইতোমধ্যে সহকারী শিক্ষক মাসুদ রানা বলেন, টিফিন চলছে শিক্ষকরা দুপুরের খাবারে গেছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কিছু শিক্ষক অভিযোগ করে বলেন, গত ২০০০ খ্রিঃ এই বিদ্যালয়টি এমপিও হয়েছে। কিন্ত প্রধান শিক্ষক বাবর হোসেন বিদ্যালয়ের অবকাঠামোর উন্নয়ন না করে বরাদ্দকৃত অর্থের অনিয়ম করছে।

সংবাদ সংগ্রহের প্রসঙ্গে প্রধান শিক্ষক বাবর হোসেন সাংবাদিকের সঙ্গে বাতবিতন্ডায় জড়িয়ে বলেন, তার প্রতিষ্ঠানে সে কি ভাবে পরিচালিত করবে, এবং সে টেবিলের উপরে পা তুলে থাকবেন না মাথা তুলে থাকবেন সেটা তার ইচ্ছা। সংবাদ প্রকাশের কোন অধিকার সাংবাদিকের নেই।

এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জয়নাল আবেদিন জানান, ওই প্রধান শিক্ষকের অসদাচারণ এবং বিদ্যালয়ের অনিয়মের বিষয়ে অভিযোগ পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

একই রকম পোস্ট
Comments
লোড হচ্ছে...