সংবাদ | বিনোদন | সারাক্ষন

এই ভুলের মাশুল বিএনপিকে দিতে হবে : ইমরান

এই ভুলের মাশুল – লন্ডনে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি অবমাননা এবং দুতাবাসে হামলা করেছেন বিএনপি। আর তারই প্রতিবাদে রোববার দেশব্যাপী বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছেন আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীরা। সেখানে তারা ওই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের অবিলম্বে আটক ও বিচারের দাবি করেন।

শুধু তাই নয়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখা যাচ্ছে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছেন দেশের সুশীল সমাজ। এবার এ বিষয়ের সমালোচনা করতে দেখা গেছে গণজাগরণের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকারকে।

তিনি এ বিষয়ে নিজের ভেরিফাইড ফেসবুকে লিখেছেন, ‘লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশনে আক্রমণ এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে জুতাপেটা বিএনপির আরেক রাজনৈতিক ভুল।’

‘আমি ভেবেছিলাম বিএনপির শুভবুদ্ধির উদয় হবে এবং এ ঘটনায় তারা জাতির কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করবেন। কিন্তু তারা এখন পর্যন্ত সেটা করেননি! সম্ভবত এই ভুলের মাশুল বিএনপিকে দিতে হবে।

আরও পড়ুন

কবে পাচ্ছেন রায়ের কপি, জানালেন আইনজীবী

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ের ষষ্ঠ দিনেও সার্টিফায়েড কপি পাননি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। ফলে পিছিয়ে গেছে তার আপিল আবেদন। কবে পাচ্ছেন রায়ের কপি, জানালেন খালেদার আইনজীবী। খালেদা জিয়ার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, ‘রায়ের কপি আগামীকাল (বুধবার) পেলে পরদিন আপিল ফাইল করা হবে।’

কবে পাচ্ছেন রায়ের কপি, জানালেন আইনজীবী

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে ওকালতনামা নিয়ে যান খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। পরে কারা ফটকে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, ‘আজকে আমরা কয়েকটি ওকালতনামা জেল সুপারের মাধ্যমে ম্যাডামের কাছে দিয়ে এসেছি। তিনি দেখে-শুনে পরে সই করে দেবেন। দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদকের মামলাসহ অন্যান্য মামলায় ম্যাডাম জামিনে আছেন।’

রায়ের কপি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আগামীকাল (বুধবার) আমরা দুপুরের পর রায়ের কপি পাব। এটা ঢাকা বিশেষ জজ-৫ আমাদের সরবরাহ করবেন। আমাদের বকশীবাজারের আলিয়া মাদ্রাসায় আসতে হবে না। কাল যদি আমরা রায়ের কপি পাই, তাহলে পরদিন হয়তো আপিল ফাইল করতে পারব।’

এসময় সাংবাদিকদের উদ্দেশে খালেদা জিয়ার এই আইনজীবী বলেন, ‘আপনারা গতকাল (সোমবার) কাস্টডি ওয়ারেন্ট ও প্রডাকশন ওয়ারেন্ট পাঠানো হয়েছে এবং শ্যোন অ্যারেস্ট বলে অনেকে নিউজ করেছেন। এর কোনোটাই আসেনি। বন্দি অবস্থায় একমাত্র কোর্ট ছাড়া অন্য কারো এটা দেয়ার ক্ষমতা নাই। এটা শুধু কোর্ট ইস্যু করবে।’

তিনি আরও জানান, আমাদের জানা মতে এবং কারা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে- এরকম কোনো কিছু আসেনি। যা এসেছে তা কোর্টে হাজিরার নির্দেশনা। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী জাকির হোসেন ভূইয়া ও সৈয়দ জয়নাল আবদিন মেজবা।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার পুরানো ঢাকার বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ জজ আদালতের বিচারক ড. আখতারুজ্জামান জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন।

এছাড়া মামলার অপর আসামি বিএনপি প্রধানের ছেলে তারেক রহমানসহ বাকি আসামিদের ১০ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। তাদেরকে ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। রায়ের পরপরই খালেদা জিয়াকে নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়া হয়। নির্জন কারাগারের একমাত্র বন্দি হিসেবে তিনি সেখানেই আছেন।

Comments
লোড হচ্ছে...