চিত্র বিচিত্র

বাজারে এল মোটরসাইকেলের “এসি” হেলমেট (জেনে নিন দাম সহ বিস্তারিত)

এসি হেলমেট – বোশেখের গরমে চারিদিকে হাসফাঁস। বেলা বাড়তেই চাঁদিফাটা রদ্দুরে ছায়া খুঁজছেন সবাই। পুকুর দিঘিতে দাপাচ্ছে খুদেরা। কিন্তু নিস্তার নেই বাইক আরোহীদের। গরম যতই পড়ুক নিস্তার নেই তাঁদের। পথে আগুনঝরা রদ্দুরের মধ্যেই মাইলের পর মাইল পথ অতিক্রম করতে হয় তাদের। এবার তেমন বাইক আরোহীদের জন্য স্বস্তির খবর। হেলমেটের জন্য AC এল ভারতের বাজারে। দামও সাধ্যের মধ্যেই।

বেঙ্গালুরুর ব্লু আর্মর নামে একটি নব বিকশিত সংস্থা তৈরি করেছে এই হেলমেট এয়ার কুলার। ব্লু স্ন্যাপ নামে এই কুলার লাগানো যাবে যে কোনও ফুল ফেস হেলমেটের সামনে। একটি ফিতার সাহায্যে হেলমেটের সামনে কয়েক সেকেন্ডেই আটকে যাবে এই এয়ার কুলার। নতুন এই হেলমেট কুলার ব্যবহার করলে তাপমাত্রা ৬ – ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত কমানো যাবে বলে দাবি সংস্থার।

শুধু গরম থেকে রেহাই-ই নয়, ব্লু স্ন্যাপে রয়েছে একটি এয়ার ফিল্টার। যার ফলে এই যন্ত্র ব্যবহার করে এড়ানো যাবে পথের দূষণ। চালু করার আগে এই এয়ার কুলারেও ভরতে হবে জল। একবার জল ভরলে টানা ২ ঘণ্টা ব্যবহার করা যাবে ব্লু স্ন্যাপ। এই এয়ার কুলারে রয়েছে একটি রিচারজেবল ব্যাটারি। একবার চার্জ দিয়ে ১০ ঘণ্টা ব্যবহার করা যাবে যন্ত্রটিকে। চার্জ দেওয়া যাবে যে কোনও ৫ ভোল্ট আউটপুট থেকে।

ব্লু আর্মরের ওয়েবসাইটে দাবি করা হয়েছে, ৩-৬ মাস চলবে এয়ার কুলারে ব্যবহৃত এক একটি এয়ার ফিল্টার। ফিল্টার বদলানো যাবে সহজেই। তাছাড়া হেলমেটের সঙ্গে মানানসই স্ট্র্যাপ ব্যবহার করা যাবে এই এয়ার কুলারের সঙ্গে।

সংস্থার ওয়েবসাইট থেকে ১,৯৪৮ টাকায় মিলছে ব্লু স্ন্যাপ। তবে এই এয়ার কুলার ব্যবহার করা কতটা নিরাপদ তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের প্রশ্ন, দুর্ঘটনায় নিরাপদ বলে দাবি করা হলেও এব্যাপারে সংস্থা কী পরীক্ষা নিরীক্ষা চালিয়েছে তা স্পষ্ট করা হয়নি।