চিত্র বিচিত্র

কয়েকটি এপিক পর্যটন আকর্ষণ, যেগুলো জীবদ্দশায় আপনি একবার হলেও যেতে চাইবেন!

কয়েকটি এপিক পর্যটন- আজকের আয়োজনে আপনাদের জন্য থাকলো বিশ্বের কয়েকটি এপিক পর্যটন আকর্ষণ, যেগুলো দেখতে আপনি অনেক ত্যাগ স্বীকার করেতেও রাজি হবেন। চলুন দেখে আসা যাক চমৎকার এই পর্যটন আকর্ষণগুলো-

১. চীনের ৫০০ ফুট উঁচু ব্রীজ

কয়েকটি এপিক পর্যটন আকর্ষণ, যেগুলো জীবদ্দশায় আপনি একবার হলেও যেতে চাইবেন!

500-foot-high bridge in China

যদি আপনার উচ্চতা ভীতি না থাকে, তাহলে চীনের গুইঝু প্রদেশের লিউপানঝুই থেকে ইউনান প্রদেশের জুয়ানওই এলাকায় মাত্র ২ ঘন্টায় চলে যেতে পারেন চীনের ৫০০ ফুট উঁচু ব্রীজ দেখতে। বিশ্বে সবচেয়ে উঁচু ব্রীজ তৈরিতে প্রতিনিয়ত বিশ্বে বিস্ময়ের জন্ম দিচ্ছে চীন।

২. তিয়ানজী গার্ডেন হোটেল, চীন

কয়েকটি এপিক পর্যটন আকর্ষণ, যেগুলো জীবদ্দশায় আপনি একবার হলেও যেতে চাইবেন!

Tianzi Garden Hotel, China

এই চমৎকার ভবনটির নকশা ৩ জন চীনা দেবতা ফু, লূ ও শোর অনুলিপি, যা চীনামাটির তৈরি। লাল রঙের কেন্দ্রীয় মূর্তিটি গড ফু, যিনি সুখ ও ভাগ্যের প্রতীক। তার ডানপাশে সবুজ ড্রেসে দাঁড়ানো মূর্তিটি হলো গড লূ, সমৃদ্ধি ও সম্পত্তির দেবতা এবং শেষের জন গড শো, যিনি স্বাস্থ্য, দীর্ঘায়ুর দেবতা।

৩. হঁ প্যার ভিলা গার্ডেন, সিংগাপুর

কয়েকটি এপিক পর্যটন আকর্ষণ, যেগুলো জীবদ্দশায় আপনি একবার হলেও যেতে চাইবেন!

© depositphotos.com

কয়েকটি এপিক পর্যটন আকর্ষণ, যেগুলো জীবদ্দশায় আপনি একবার হলেও যেতে চাইবেন!

© Helen / Seniors Travel Blog

চিন্তা করবেন না, এটি একটি অভিশাপের ছবি নয়, সিঙ্গাপুরে অবস্থিত হঁ প্যার ভিলা গার্ডেন পার্কের প্রবেশ দ্বার এটি। এখানে এইরকম এক হাজারের অধিক মূর্তি রয়েছে।

৪. সি এন টাওয়ার, কানাডা

কয়েকটি এপিক পর্যটন আকর্ষণ, যেগুলো জীবদ্দশায় আপনি একবার হলেও যেতে চাইবেন!

© Margaret S

এই অবজারভেশন টাওয়ারের উচ্চতা ১,৮১৫ ফুট। আমেরিকান সোসাইটি অব সিভিল ইঞ্জিনিয়ারস ১৯৯৫ সালে সি এন টাওয়ারকে “আধুনিক সপ্তম আশ্চর্য” বলে ঘোষণা করে। ১৯৭৬ সালের জুন মাসে শেষ হওয়া সি এন টাওয়ার তৈরিতে সময় লেগেছিল ৪০ মাস, আর এই  অবজারভেশন টাওয়ারের নির্মাণ খরচ ছিল ৬৩ মিলিয়ন কানাডিয়ান ডলার। প্রতি বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে প্রায় ২ মিলিয়ন মানুষ সি এন টাওয়ারের সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে আসে।

৫. নেদারল্যান্ডের ঘনক বাড়ি

কয়েকটি এপিক পর্যটন আকর্ষণ, যেগুলো জীবদ্দশায় আপনি একবার হলেও যেতে চাইবেন!

© depositphotos.com

বাড়ি সম্পর্কে কি আপনি আপনার ধারণা বদলে ফেলতে চান? তাহলে দেখে আসতে পারেন নেদারল্যান্ডের ঘনক বাড়ি। বিখ্যাত স্থপতি, পিট ব্লম ১৯৮৪ সালে নেদারল্যান্ডের রটারডামে বাড়িগুলো ডিজাইন করেছিলেন। তার চমৎকার ও অনন্য নকশার জন্য অল্প সময়ের মধ্যে সারা বিশ্বে পরিচিত হয়ে ওঠেন।

৬. ডিভাইস টু রুট আউট ইভিল, মায়োর্কা

কয়েকটি এপিক পর্যটন আকর্ষণ, যেগুলো জীবদ্দশায় আপনি একবার হলেও যেতে চাইবেন!

© Wikinger wiki / Wikimedia Commons

উদ্ভাবনী ও ধারণাগত শিল্পী ডেনিস অপ্পেনহিমের শ্রেষ্ঠ কাজ এটি। মায়োর্কার প্লাজা দে লা পুয়ার্তা দে সান্তা কাতালানায় পালমায় এই বিতর্কিত ভাস্কর্যটি অবস্থিত।

৭. গ্লাস ব্রীজ, চীন

কয়েকটি এপিক পর্যটন আকর্ষণ, যেগুলো জীবদ্দশায় আপনি একবার হলেও যেতে চাইবেন!

Glass Bridge, China

চীনের হেনান প্রদেশের ফুজি পাহাড়ের ওপর নির্মিত কাঁচের ব্রীজটি পৃথিবীর সবচেয়ে দীর্ঘ ইউ-শেপ কাঁচের ব্রীজ বলে স্বীকৃতি দিয়েছে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড কর্তৃপক্ষ। তিন টন ওজনের এই ব্রীজ তৈরিতে সময় লেগেছিল ৮ মাস।

৮. স্বরভস্কি ক্রিস্টাল হেড ফাউন্টেন, অস্ট্রিয়া

কয়েকটি এপিক পর্যটন আকর্ষণ, যেগুলো জীবদ্দশায় আপনি একবার হলেও যেতে চাইবেন!

© depositphotos.com

অস্ট্রিয়ান শিল্পী আন্দ্রে হেল্ডার ফোয়ারাটি নির্মান করেন। বিল্ডিং ভিতরে স্বরভস্কি যাদুঘর আছে, ঘাসে ঢেকে একটি বিশাল মাথা আকারে তৈরি করা হয়েছে স্বরভস্কি ক্রিস্টাল হেড ফাউন্টেন।

আপনার মূল্যবান মতামত কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না। সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ…