জাতীয়

ঢাকার যে আসনের জন্য মনোনয়ন ফরম কিনেছেন অভিনেতা সোহেল খান

ঢাকার যে আসনের জন্য- জনপ্রিয় নাট্য অভিনেতা সোহেল খান আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন আজ। তিনি ঢাকা-২০ (ধামরাই) আসনের জন্য মনোনয়ন ফরম কিনেছেন বলে জানান ঢাকা বিভাগের মনোনয়ন ফরম বিক্রির দায়িত্বরত ছাত্রলীগের সাবেক নেতা শামসুল কবির রাহাত।

এ আসনে দীর্ঘদিন ধরে বর্তমান এমপি এম এ মালেক ও সাবেক এমপি বেনজীর আহমদের মধ্যে দলীয় কোন্দল বিরাজমান রয়েছে।

২০১৬ সালে নাট্য অভিনেতা সোহেল খান আওয়ামী লীগ থেকে ধামরাই উপজেলার চৌহাট ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করে স্বতন্ত্র প্রার্থী এক গৃহবধুর কাছে হেরে যান। ওই গৃহবধূ সোহেল খানের চেয়ে ২৩৯৮ ভোট বেশি পান। গৃহবধূর নাম পারভীন হাসান প্রীতি।

চৌহাট এলাকার অনেকে বলেন, সোহেল খান টিভিতে যেভাবে সহজ-সরল ভাষায় অভিনয় করেন। কিন্তু ভোট প্রার্থনার ক্ষেত্রে সেই সহজ-সরল ভাষা প্রয়োগ করেননি। তিনি জনগণের সাথে রূঢ় আচরণ করেই ভোট চেয়েছেন। আর সাধারণ ভোটারগণ তার সমুচিত জবাব দিয়েছেন অন্ধকারের বুথে।

রাজশাহীর জনসভায় বঙ্গবন্ধু ও জিয়াউর রহমানকে নিয়ে যা বললেন কাদের সিদ্দিকী

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও জিয়াউর রহমানের দ্বন্দ্ব ঘুচিয়ে দেবেন বলে মন্তব্য করেছেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ সভাপতি বঙ্গবীর আবদুল কাদের সিদ্দিকী। শুক্রবার বিকালে রাজশাহীর আলিয়া মাদ্রাসার মাঠে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বিভাগীয় জনসভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

কাদের সিদ্দিকী বলেন, আমার এখানে আসার কথা ছিল না। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্য আমি জীবন ঝরিয়েছি, তার জন্য আমি রাজনীতিতে এসেছি, যতদিন বেঁচে থাকব আমি বঙ্গবন্ধুকে লালন করে বেঁচে থাকব।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ও জিয়াউর রহমানের এই যে দ্বন্দ্ব, এই দ্বন্দ্ব করে যারা বাংলাদেশকে লুটেপুটে খাচ্ছে আল্লাহ যদি আমাকে সময় দেন তাহলে শেখ মুজিব আর জিয়াউর রহমানের দ্বন্দ্ব আমি ঘুচিয়ে দেব ইনশাআল্লাহ। আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন।

তিনি বলেন, বিএনপি রাজাকারের গাড়িতে পতাকা দেয় নাই। শেখ হাসিনা রাজাকারের গাড়িতে প্রথম পতাকা তুলে দিয়েছেন। কাদেরিয়া বাহিনী যাকে বন্দি রেখে জামালপুর জেলে রেখেছিলাম সেই জামালপুরের সরিষাবাড়ির নুরুকে প্রথম পতাকা দিয়েছে ধর্মমন্ত্রী হিসেবে।

তারপর রংপুরের আশিকুর রহমান, চাঁদপুরের মহিউদ্দিন আলমগীরকে ময়মনসিংহের ডিসি, টাঙ্গাইলের ডিসি আমার ব্রিগেডিয়ার ফজলুর রহমান আশিকুর রহমানকে পাছায় লাথি মারতে মারতে জেলখানায় ঢুকিয়েছিল।

কাদের সিদ্দিকী বলেন, আমি হাত চালাই না। মুক্তিযুদ্ধের সময় শুধু আমার সঙ্গে সিলেটের একটি মানুষ ছিল, সে আমার পিঠে হাত দিয়ে বলেছিল বজ্রভাই, চিন্তা করবেন না আমি আছি, আমার মনে হয়েছিল সারা বাংলাদেশ আমার পেছনে আছে।

তিনি বলেন, আমি হাত তুলি না, আমি কারো গায়ে হাত লাগাই না। রাসূল বলেছেন, যার হাত থেকে আর জিহবা থেকে মুমিন মুক্ত নয় মুসলমানই নয়। আমি আমার হাতের ব্যবহার জানি না, আমি আমার বাবা-মায়ের হাতে মার খেয়েছি কিন্তু আমার গায়ে আমার একটি পশমও কেউ স্পর্শ করতে পারেনি। আমি আমার হৃদয় দিয়ে লড়াই করি।

মাইকে ঘোষণা দিয়ে ৩ পুলিশ সদস্যকে পেটাল গ্রামবাসী

ডিবি পুলিশের তিন কনস্টেবলকে গণপিটুনি দিয়েছে গ্রামবাসী। গণপিটুনির শিকার আহতরা হলেন কনস্টেবল মুরাদ হোসেন, শিমুল হোসেন ও মামুন আলী। এসময় প্রাইভেটকার চালক শাওনকে মারধর করে গ্রামবাসী। তাদের যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৮ নভেম্বর) রাত ১০টার দিকে যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার মাটিকুমড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

যশোরের পুলিশ সুপার মঈনুল হক সাংবাদিকদের জানান, বৃহস্পতিবার রাতে যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার মাটিকুমড়া গ্রামে এক মাদক বিক্রেতাকে ধরতে অভিযানে যায় গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ।

কিন্তু ডিবি পুলিশকে ভুয়া মনে করে গ্রামের লোকজন মাইকে ঘোষণা দিয়ে জড়ো হয়ে পুলিশের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। এসময় গণপিটুনিতে আহত হন ডিবির তিন কনস্টেবল ও প্রাইভেটকার চালক। পরে পুলিশ খবর পেয়ে তাদের উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেছে।

পুলিশ সুপার মঈনুল হক ব্রিফিংকালে আরও জানান, আইনশৃঙ্খলার বিঘ্ন ঘটাতে কোনো চক্র পরিকল্পিতভাবে এ হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে কিনা পুলিশ তা খতিয়ে দেখছে।

দাবি না মানলে যা করার ঘোষণা দিলেন মির্জা ফখরুল

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দাবি না মানলে নির্বাচনী তফসিল গ্রহণযোগ্য হবে না জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, গণতন্ত্রকে রক্ষার করার এই আন্দোলনকে প্রাণ দিয়ে হলেও আমরা সফল করবই। জনগণের আন্দোলনের মধ্য দিয়ে এই সরকারের পতন হবে।

আজ শুক্রবার (৯ নভেম্বর) বিকেলে রাজশাহীর কেন্দ্রীয় মাদ্রাসা ময়দানে আয়োজিত ঐক্যফ্রন্টের বিভাগীয় সমাবেশে তিনি বলেন, রাজশাহীর মানুষের কাছে আমাদের আবেদন। আপনারা সংগ্রামী মানুষ, লড়াকু মানুষ। আমাদের মনে আছে, রাজনৈতিক আন্দোলনে রাজশাহীর কত মানুষের প্রাণ দিয়েছে।

উপস্থিত জনতার উদ্দেশে প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে তিনি বলেন, আপনাদের কাছে আমার প্রশ্ন- আপনারা কি খালেদা জিয়ার মুক্তি চান? তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনতে চান? তাহলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলনের মধ্য দিয়ে দাবি আদায় করতে হবে।

ফখরুল বলেন, আমাদের কথা পরিষ্কার- নির্বাচনের মাঠ সমান করতে হবে। সব দলকে সমান অধিকার দিতে হবে। মিথ্য মামলায় গ্রফতার নেতা-কর্মীদের মুক্তি দিতে হবে। দাবি না মানলে নির্বাচনী তফসিল গ্রহণযোগ্য হবে না।

আপনার মতামত