সংবাদ | বিনোদন | সারাক্ষন

প্রসব বেদনা সইতে না পেরে নারীর আত্মহত্যা (ভিডিওসহ)

নারীর আত্মহত্যা – প্রসব বেদনা সইতে না পেরে আত্মহত্যা করেছেন এক গর্ভবতী নারী। প্রথমে তাকে নরলাম ডেলিভারীতে বাচ্চা প্রসবের চেষ্টা করেন চিকিৎকরা। এরপর চিকিৎসকরা তার পরিবারকে অপারেশনের বিষয়টি জানায়। কিন্তু তারা কিছুতেই রাজি হয়নি। পরে ওই নারী প্রসব বেদনা সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা করেন।

আর ঘটনাটি ঘটেছে চীনের সাংহাই প্রদেশের একটি নামকরা হাসপাতাল ইউলিনে।

বয়স ২৬ বছর। ছটফট করছিলেন প্রসবব যন্ত্রণায়। দাঁড়ানোর ক্ষমতা নেই তার। বারবার তাই বসে পড়ছিলেন। কাকুতি মিনতি করছিলেন স্বামী ও পরিবারের অন্যান্যদের কাছে সিজারিয়ান ডেলিভারি করার অনুমতি দেওয়ার জন্য। তা সত্ত্বেও রাজি হয়নি তার পরিবারের লোকজন।

তখন সেই নারী গত ৪১ সপ্তাহ ধরে গর্ভবতী। চিকিৎসকরাও পরীক্ষা করার পর জানান, তার গর্ভস্থ সন্তানের মাথা বড় হওয়ায় ওই মহিলার পক্ষে নর্মাল ডেলিভারি হওয়া খুবই কঠিন। তবে তার স্বামী ও শ্বশুড় বাড়ির লোকজন সেটা কিছুতেই মানতে রাজি নন। তারপর অসহ্য প্রসব যন্ত্রণা সত্ত্বেও তাকে নর্মাল ডেলিভারির জন্যই ফেলে রাখা হয়।

কষ্ট সহ্য না করতে পেরে হাসপাতালে ৫ তলা থেকে ঝাঁপ দেন বছর সেই নারী। তারপর সব শেষ। গর্ভস্থ সন্তান ও মা দুজনেই মারা যান। এই যন্ত্রণাকাতর ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়েছে ইউটিউবে।

চীনা নিয়ম অনুসারে সন্তানসম্ভবা নারীর সিজার করা হবে কিনা তার সিদ্ধান্ত নেয় তার পরিবার। এক্ষেত্রে যিনি সন্তান জন্ম দেবেন তার মতের কোনও গুরুত্ব দেওয়া হয় না। এই নারীর ক্ষেত্রেও তেমনটাই ঘটেছিল।

প্রতিদিন ঘটে যাওয়া নানা রকম ঘটনা আপনাদের মাঝে তুলে ধরা এবং সামাজিক সচেতনতা আমাদের লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য।

দেখুন তার পর মন্তব্য করুন পরবর্তী আপডেট পেতে পেইজ এ লাইক, কমেন্ট এবং শেয়ার করে আমাদের সাথেই থাকবেন।

বি: দ্র : ই্উটিউব থেকে প্রকাশিত সকল ভিডিওর দায় সম্পুর্ন ই্উটিউব চ্যানেল এর ।

এর সাথে আমরা কোন ভাবে সংশ্লিষ্ট নয় এবং আমাদের পেইজ কোন প্রকার দায় নিবেনা।

দেখুন সেই ভিডিওটি

একই রকম পোস্ট
Comments
লোড হচ্ছে...