সংবাদ | বিনোদন | সারাক্ষন

বীর্যপাতের পর কি করতে হয়, যা প্রত্যেক ছেলেদের অবশ্যই জানা উচিত

বীর্যপাতের পর কি করতে হয়- অনেক পুরুষই লক্ষ করেছেন, হস্তমৈথু‌ন বা সঙ্গমের শেষে বীর্যপাত ঘটার পর প্রস্রাব করতে গেলে অসুবিধা হচ্ছে, প্রস্রাব হতে চাইছে না, অথবা পুরুষাঙ্গে জ্বালা অনুভূত হচ্ছে। তাঁদের মনে প্রশ্ন জেগেছে, বিষয়টা কি স্বাভাবিক?

ডাক্তারেরা জানাচ্ছেন, বীর্যপাত হওয়ার পরে প্রস্রাবে অসুবিধা অনুভব করা অত্যন্ত স্বাভাবিক। আসলে যৌন উত্তেজনার সময়ে পুরুষ শরীরের প্রস্টেট গ্রন্থিটি স্ফীত হয়ে ওঠে। এই প্রস্টেটের অবস্থান অণ্ডকোষ ও পায়ুর মাঝামাঝি অংশে।

বীর্যকে ঠিক পথে চালিত করা এই গ্রন্থির কাজ। বীর্যপাতের পূর্বে এই অংশে যে সংকোচন-প্রসারণ ঘটে তার ফলেই প্রস্টেটটি ফুলে যায়। এই স্ফীতির ফলে প্রস্রাব মূত্রথলি থেকে বাধাহীন ভাবে নির্গত হতে পারে না। সেই কারণে অসুবিধা ঘটে প্রস্রাবে।

অনেক পুরুষই লক্ষ করেছেন, হস্তমৈথু‌ন বা সঙ্গমের শেষে বীর্যপাত ঘটার পর প্রস্রাব করতে গেলে অসুবিধা হচ্ছে, প্রস্রাব হতে চাইছে না, অথবা পুরুষাঙ্গে জ্বালা অনুভূত হচ্ছে। তাঁদের মনে প্রশ্ন জেগেছে, বিষয়টা কি স্বাভাবিক?

ডাক্তারেরা জানাচ্ছেন, বীর্যপাত হওয়ার পরে প্রস্রাবে অসুবিধা অনুভব করা অত্যন্ত স্বাভাবিক। আসলে যৌন উত্তেজনার সময়ে পুরুষ শরীরের প্রস্টেট গ্রন্থিটি স্ফীত হয়ে ওঠে। এই প্রস্টেটের অবস্থান অণ্ডকোষ ও পায়ুর মাঝামাঝি অংশে।

বীর্যকে ঠিক পথে চালিত করা এই গ্রন্থির কাজ। বীর্যপাতের পূর্বে এই অংশে যে সংকোচন-প্রসারণ ঘটে তার ফলেই প্রস্টেটটি ফুলে যায়। এই স্ফীতির ফলে প্রস্রাব মূত্রথলি থেকে বাধাহীন ভাবে নির্গত হতে পারে না। সেই কারণে অসুবিধা ঘটে প্রস্রাবে।

আরো পড়ুনঃ

বিবাহিত হলেই এবার ঢোকার সুযোগ পাবেন বোটানিক্যাল গার্ডেনে

বোটানিক্যাল গার্ডেনে যাওয়ার কথা ভাবছেন? বিয়ে করেছেন কি? তাহলেই আপনি কিন্তু বোটানিক্যাল গার্ডেনে ঢোকার সুযোগ পাবেন। না হলে কিন্তু নয়। কারণ, এবার থেকে বোটানিক্যাল গার্ডেনে বিবাহিত মহিলারাই ঢুকতে পারবেন। যদিও এই গার্ডেন হাওড়াতে নয়।

তামিলনাড়ু বোটানিক্যাল গার্ডেনে এমনটাই আজব নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। আর নির্দেশিকা ঘিরে তৈরি হচ্ছে সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্ষোভ। এমনকি, নির্দেশিকা জারি হওয়ার পর থেকে হঠাত করে অনেকটাই কমে গিয়েছে বাগানের দর্শক সংখ্যা।

তামিলনাড়ুর কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের তৈরি এই বোটানিক্যাল গার্ডেন। তাঁদের তরফে দেওয়া নির্দেশিকাতে বলা হয়েছে, অবিবাহিত যুগলেরা বাগানের মধ্যে নানারকম নোংরামি শুরু করেছে।

আর তাঁদের এই কাজের জন্যে সমস্যার মধ্যে পড়তে হচ্ছে বাগানের কর্মীদের। আর সেজন্যেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। নির্দেশিকাতে বলা হয়েছে, যাঁরা আসছেন তাঁরা বিবাহিত কিনা জানতে আইডি কার্ড দেখানো বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

তামিলনাড়ুর উদ্যান বিভাগের আধিকারিক অধ্যাপক কানান জানিয়েছেন, বাগানে প্রচুর বনৌষধি এবং বিরল প্রজাতির গাছ রয়েছে। সেগুলির নষ্ট হয়ে যাচ্ছিল অযাচিত ভিড়ে। আর সেজন্যে এই নির্দেশিকা জারি করতে বাধ্য হয়েছে কতৃপক্ষ।

Comments
লোড হচ্ছে...