সম্প্রতি অল্প দামের এই স্মার্টফোনটি মশা তাড়ানোর কাজ করবে

মশা তাড়ানোর কাজ – আপনি কি মশার কামড়ে অতিষ্ঠ? আপনি যেখানেই থাকেন না কেন মশা আপনাকে ঠিকই খুঁজে নেয়? আপনার মূল্যবান রক্ত পান করে তবেই আপনাকে ছাড়ে। এসে গেলে মশা তাড়ানোর মোক্ষম উপায়। না কোন মশার কয়েল কিংবা যন্ত্রের কথা বলছি না। আপনার হাতের মুঠোর স্মার্টফোনই এখন মশা তাড়াবে। ভাবছেন গালগল্প দিচ্ছি! কিন্তু না, ঘটনা সত্যি। কোরিয়ার প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এলজি এমন একটি ফোন এনেছ যেটি মশা তাড়িয়ে আপনাকে স্বস্তি দেবে।

মশা তাড়ানোর বিশেষ প্রযুক্তি সম্বলিত এলজির এই ফোনটির মডেল কে সেভেন আই। সম্প্রতি এলজি এই ফোনটি ভারতের ‘ইন্ডিয়ান মোবাইল কংগ্রেস ২০১৭’ তে প্রদর্শন করেছে। ফোনটি বেশ সাড়াও ফেলেছে। এই স্মার্টফোন মশা তাড়ানোর কাজ করবে! এর ছবি ফলাফল

ফোনটি দিয়ে মশা তাড়ানোর জন্য সাউন্ড ওয়েভ টেকনোলজি ব্যবহার করা হয়েছে। এই প্রযু্ক্তির নাম ‘মসকিউটো অ্যাওয়ায়ে টেকনোলজি’। এটি ফোনে চালু করলে মশা আপনার কাছে থেকে পালিয়ে বেড়াবে। আর আপনি থাকবেন স্বস্তিতে।

এলজিতে জানিয়েছে, ফোনটিতে আল্টা সনিক ওয়েব ব্যবহার করলেও এর তেজস্ক্রিয়তা মানুষের জন্য ক্ষতিকর নয়। ফোনটি থেকে ক্ষতিকর তেজস্ক্রিয় পদার্থ নিঃর্গমন হয় না।

এলজি দাবি করছে, ফোনটিতে তারা যে আল্ট্রাসনিক ফ্রিকোয়েন্সি ব্যবহার করেছে তা সহনীয় মাত্রায় রয়েছে। ফলে মানুষের শরীরের উপর প্রভাব না ফেলে মশা তাড়াবে।

ফোনটিতে মশা তাড়ানোর অপশনটি চালু করলে এটি নিঃশব্দে কাজ করবে। মশা তাড়ানোর যন্ত্রের মত এতে নির্দিষ্ট সময় অন্তর অন্তর রিফিলও করতে হবে না।

এতো গেলে ফোনটির মশা তাড়ানোর বিশেষ ফিচারের গুণাগুণ। এবার আসা যাক ফোনটির স্পেসিফিকেশনে। ফোনটিতে আছে ৫ ইঞ্চির ইনসেল ডিসপ্লে, কোয়াড কোর

প্রসেসর, ২ জিবি র‌্যাম এবং ১৬ জিবি রম।

ফোনটি অ্যানড্রয়েড মার্শম্যালো অপারেটিং সিস্টেমে চলবে। এতে ২৫০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি রয়েছে।

ছবির তোলার জন্য ফোনটিতে ৮ মেগাপিক্সলের রিয়ার ক্যামেরা ও ৫ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা রয়েছে। উভয় ক্যামেরায় এলইডি ফ্লাশগান আছে।

কানেকটিভিটির জন্য আছে ব্লটুথ, ওয়াইফাই, মাইক্রোইউএসবি। এর আগে এলজি মশা তাড়ানো প্রযুক্তি সম্বলিত টিভি এবং এয়ার কন্ডিশন বাজারে এসেছিল।

ফোনটির এতসব গুণগান শুনে নিশ্চয়ই ফোনটি কিনবেন বলে ভাবছেন! কিন্তু বাংলাদেশে এখনই ফোনটি পাওয়া যাচ্ছে না। এটি কিনতে হলে আপনাকে যেতে হবে প্রতিবেশি দেশ ভারতে। দাম ভারতীয় মুদ্রায় ৭ হাজার ৯৯০ রুপি।