জাতীয়

মুক্তির আগেই ‘দহন’ দেখবেন প্রধানমন্ত্রী

মুক্তির আগেই- মুক্তির আগেই মম-সিয়াম-পূজা অভিনীত চলচ্চিত্র ‘দহন’ দেখবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামী ১০ নভেম্বর হবে এই বিশেষ প্রদর্শনী। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চলচ্চিত্রটি সংশ্লিষ্ট একাধিকজন।

ছবিটির নির্মাতা রায়হান রাফী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এটি দেখার জন্য মনস্থির করেছেন, এমন খবরে আমরা সত্যিই খুশি। তবে সময় ও স্থানটি এখনও চূড়ান্ত নয়।’

তিনি যোগ করে আরও বলেন, ‘এ চলচ্চিত্রটি হলো রাজনৈতিক অস্থিরতা কিংবা আগুন সন্ত্রাসকে নিয়ে। কয়েক বছর আগে আমাদের দেশে এমন ঘটনা অহরহ হয়েছে। তখন মানুষের জীবন হয়ে গিয়েছিল সবচেয়ে অনিরাপদ। ছবিতে এই গল্পটিই তুলে ধরার চেষ্টা করেছি।’

জানা যায়, সন্ত্রাস ও মাদককে নিরুৎসাহিত করতে চলচ্চিত্রটি নির্মিত হয়েছে। আর এমন বিষয়ের ছবি হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এটি দেখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

‘দহন’ ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্রে আছেন সিয়াম আহমেদ ও পূজা। সিয়াম এখানে নেশাগ্রস্ত যুবকের চরিত্রে অভিনয় করেছেন। পূজাকে দেখা যাবে গার্মেন্ট কন্যার চরিত্রে।

আর সাংবাদিক হিসেবে আছেন জাকিয়া বারী মম। আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় আছেন মনিরা মিঠু।
নির্মাতা রায়হান রাফী ছবিটি প্রদর্শনের তারিখ প্রকাশ না করলেও অভিনেত্রী মনিরা মিঠু এক ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে জানান, ১০ নভেম্বর ছবিটি দেখার সম্ভাবনা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর।

মিঠুর ভাষ্যে, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ১০ তারিখে ছবিটা দেখবেন। ছবিটি দেখে মনিরা মিঠুর চোখের পানির সঙ্গে নিশ্চয়ই প্রধানমন্ত্রীর চোখের পানিও পড়বে, এটা আমি নিশ্চিত।

ধন্যবাদ জাজ মাল্টিমিডিয়া, ধন্যবাদ দহন টিমকে।’জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী ছবিটি দেখার পরই মুক্তির দিন চূড়ান্ত করা হবে। ধারণা করা হচ্ছে, চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে।

Source : Bangla Tribune

চার শিল্পীকে ৯০ লাখ টাকা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

চিকিৎসা ও স্বাভাবিক জীবনযাপনের জন্য দেশের চার গুণী শিল্পীকে অর্থ দিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই চারজনের মধ্যে আছেন তিন চলচ্চিত্র অভিনেতা ও একজন সংগীতশিল্পী।

তারা হলেন প্রবীর মিত্র, রেহানা জলি, নূতন ও কুদ্দুস বয়াতি। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে গণভবনে তাদের হাতে ৯০ লাখ টাকা তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী।

এরমধ্যে প্রবীর মিত্র ও রেহানা জলি জনপ্রতি পেয়েছেন ২৫ লাখ এবং অভিনেত্রী নূতন ও শিল্পী কুদ্দুস বয়াতি পেয়েছেন ২০ লাখ টাকা করে।

শিল্পী ঐক্য জোটের সভাপতি ও অভিনেতা ডি এ তায়েবের পরামর্শে ও সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক নাট্যনির্মাতা জিএম সৈকতের তত্ত্বাবধানে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন করেন কুদ্দুস বয়াতি ছাড়া বাকি তিন শিল্পী।

অনুদান গ্রহণের সময় শিল্পী ঐক্য জোটের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন নির্মাতা জিএম সৈকত। গণভবনে তারা আধঘণ্টা সময় কাটান। এ সময় প্রধানমন্ত্রী শিল্পীদের নানান খোঁজ খবর নেন।

এ অর্থ প্রাপ্তির পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় শিল্পীরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। অভিনেতা প্রবীর মিত্র জানান, প্রধানমন্ত্রী একজন অসাধারণ মানুষ। প্রধানমন্ত্রী ব্যস্ত থাকার পরও তাদের সাক্ষাতের সময় দিয়েছেন বলে ধন্যবাদ জানান তিনি।

ক্যানসার আক্রান্ত অভিনেত্রী রেহানা জলি বলেন, ‌‘এক বছর ধরে অসুস্থতার কারণে ঘরে পড়ে আছি। সিনেমায় কাজ করতে পারছি না। এ টাকাটা আমার কাছে আশীর্বাদস্বরূপ। চিকিৎসা শেষে আমি আবারও চলচ্চিত্রে ফিরতে চাই।’

বিক্রেতা সাইমন, ক্রেতা মাহি

নতুন ছবি ‌‘আনন্দ অশ্রু’তে আবারও জুটি বেঁধে আসছেন সাইমন সাদিক ও মাহিয়া মাহি। গ্রামের পটভূমিতে নির্মিত হচ্ছে ছবিটি।

এর গল্পে দেখা যাবে, গানের মানুষ সাইমন। মনের ক্ষুধা মেটাতে গান করলেও তার সংসার চলে না। তাই পেটের জন্য হলেও তাকে অন্য কিছু করতে হবে। অন্যদিকে প্রেমিকা মাহিকে বিয়ে করতে হলেও তাকে রোজগার করতে হবে। বাধ্য হয়েই গান ছেড়ে সাইমন সিঙ্গাড়া-সমুচার দোকান খোলেন। আর যার ক্রেতা হিসেবে মাঝে মধ্যে হাজির হন মাহি।

ছবির পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান মানিক জানান, বর্তমানে এ ছবির শুটিং চলছে মানিকগঞ্জে। এখানে ফরহাদ চরিত্রে অভিনয় করেছেন সাইমন এবং শিরি চরিত্রে অভিনয় করেছেন মাহি। ত্রিভুজ প্রেমের এ গল্পের অপর নায়ক জয় চৌধুরী।

মানিক বলেন, ‌‘‘২৭ অক্টোবর থেকে ‘আনন্দ অশ্রু’ ছবির তৃতীয় লট শুরু হয়েছে। আশুলিয়া শেষে বর্তমানে কাজ চলছে মানিকগঞ্জের জিটকা এলাকায়। বুধবার (৭ নভেম্বর) শেষ হবে এ লটের কাজ।’’

‘আনন্দ অশ্রু’তে আরও অভিনয় করছেন শহিদুজ্জামান সেলিম, আলীরাজ, সুজাতা, মারুফ প্রমুখ। সুদীপ্ত সাইদ খানের

গল্পে সিনেমাটির সংলাপ ও চিত্রনাট্য করেছেন আসাদ জামান।
মজার বিষয় হলো, ১৯৯৭ সালের মুক্তিপ্রাপ্ত শিবলী সাদিক পরিচালিত এবং সালমান শাহ ও শাবনূর অভিনীত সুপারহিট

‘আনন্দ অশ্রু’ সিনেমার নামেই নতুন সিনেমাটি নির্মিত হচ্ছে।
তবে নাম এক হলেও গল্পের কোনও মিল থাকছেন না বলে নিশ্চিত করেছেন নির্মাতা মোস্তাফিজুর রহমান মানিক।

আপনার মতামত