বাসের চাপায় হাত হারানো সেই রাজিব আর নেই

রাজিব আর নেই – দুই বাসের চাপায় হাত হারানো তিতুমীর কলেজের ছাত্র রাজিব চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেলের আইসিইউ’তে মারা গেছেন। রাত ১২.৪০ মিনিটে তাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাজিবের মামা জাহিদুল ইসলাম।

গত ৩ এপ্রিল রাজধানীর কারওয়ান বাজারে পান্থকুঞ্জ পার্কের সামনে বিআরটিসি বাসের সঙ্গে স্বজন পরিবহনের বাস টক্কর দিতে গেলে বাস দু’টির চিপায় পড়ে ডান হাত বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় রাজিবের। সরকারি তিতুমীর কলেজের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের এ ছাত্রকে তাৎক্ষণিক নিকটস্থ হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও পরদিন ঢামেকে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে সরকারের তত্ত্বাবধানে তার চিকিৎসা চলছিল।

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার বাঁশবাড়ি গ্রামের রাজীব তৃতীয় শ্রেণিতে থাকাকালে মাকে এবং অষ্টম শ্রেণিতে থাকাকালে বাবাকে হারান। এরপর ঢাকার মতিঝিলে খালা জাহানারা বেগমের বাসায় থেকে এসএসসি ও এইচএসসি পাস করেন। মহাখালীর তিতুমীর কলেজে স্নাতকে ভর্তি হওয়ার পর যাত্রাবাড়ীতে মেসে ভাড়ায় থেকে পড়াশোনা করছিলেন রাজিব। এর পাশাপাশি তিনি একটি কম্পিউটারের দোকানেও কাজ করতেন। ছোট দুই ভাইয়ের খরচও চালাতে হতো তাকে।

এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ৪ এপ্রিল বিআরটিসি বাসের চালক ওয়াহিদ (৩৫) ও স্বজন বাসের চালক খোরশেদকে (৫০) গ্রেফতার করা হয়। ৫ এপ্রিল দু’জনকে আদালতে তোলা হলে তাদের দুই দিনের রিমান্ডে পাঠানো হয়। ৮ এপ্রিল দু’জনকে কারাগারে পাঠানো হয়। সোমবার দুই আসামির পক্ষ থেকে জামিন আবেদন করা হলেও নামঞ্জুর করেন আদালত।

এদিকে, রাজীবের মৃত্যুতে শোক জানিয়েছে যাত্রী অধিকার আন্দোলন। আজ সকাল ১০টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করবে তারা।

একই রকম পোস্ট
Comments
লোড হচ্ছে...