বিনোদন

ক্যানসারের চিকিৎসার জন্য রেহানা জলিকে যত টাকা অনুদান দিলেন প্রধানমন্ত্রী

রেহানা জলিকে- ঢাকাই সিনেমা জনপ্রিয় অভিনেত্রী রেহানা জলি। দীর্ঘদিন ধরেই ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করছেন তিনি। প্রায় দেড় বছর কোনো কাজ করতে না পারায় আর্থিক সংকটে ভুগছেন। শুধু তাই নয় ঠিক মতো চিকিৎসাও করাতে পারছেন না। নিরুপায় হয়েই তাই প্রধানমন্ত্রীর সহযোগীতা কামনা করেছিলেন।

আনন্দের সংবাদ হলো অন্যান্যদের মতো এ অভিনেত্রীকেও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। ঢাকাই চলচ্চিত্রের এই অভিনেত্রীর চিকিৎসা করতে প্রধানমন্ত্রী তার হাতে ২৫ লাখ টাকার অনুদান তুলে দিয়েছেন।

সহযোগীতা পেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে রেহানা জলি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী অসাধারণ একজন মানুষ। তিনি অসহায়দের সহায় জানতাম বলেই আমার চিকিৎসার জন্য সহায়তা চেয়েছিলাম। আজ সকাল সাড়ে আটটায় তিনি আমাকে গণভবনে ডেকে পাঠান। সেখানেই আমার হাতে ২৫ লাখ টাকার সঞ্চয়পত্র তুলে দিয়েছেন।

আমার জীবনে সবচেয়ে বড় উপকারটা তিনিই করলেন। কারণ অর্থাভাবে আমার চিকিৎসাইতো বন্ধ হয়ে গিয়েছিলো। এখন আবার প্রধানমন্ত্রীর কল্যাণে চিকিৎসা শুরু করতে পারবো। সুস্থ হয়ে কাজে ফিরতে পারবো।’

রেহানা জলির অসুস্থতা বেড়ে যাওয়ার সংবাদ জেনেই তার খোঁজ খবর নিয়েছিলেন শিল্পী ঐক্যজোটের সভাপতি ডি এ তায়েব ও সংগঠনটির সেক্রেটারি জিএম সৈকত। এই দুইজনকেও কৃতজ্ঞতা জানান জলি।

উল্লেখ্য, প্রায় চারশোরও অধিক ছবিতে অভিনয় করেছেন জলি। মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন অনেক চলচ্চিত্রে। শুধুমায়ের চরিত্রেই নয়, নায়ক রাজ রাজ্জাক, আলমগীরের মতো নায়কদের নায়িকা চরিত্রেও অভিনয় করেছেন তিনি। ১৯৮৫ সাল থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় চার শতাধিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি।

বাবার চেয়ে ছেলে যখন বড়!

পিতা-পুত্র আলী যাকের এবং সন্তান ইরেশ যাকের। আজ তাদের দুজনেরই জন্মদিন। আলী যাকেরের জন্মদিন ৬ নভেম্বর ১৯৪৪ সালে। ইরেশ যাকের জন্মেছেন ৬ নভেম্বর ১৯৭৬। আর তাই প্রতিবছর একই দিনে জন্মদিনের কেক কাটেন তারা।

তাদের জন্মদিন নিয়ে আছে মজার কিছু ঘটনাও। একটু পেছনের ইতিহাস টানা যাক। চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী ইরেশ যাকেরের জন্ম হওয়ার কথা ছিল ২২ অক্টোবর। কিন্তু সারা যাকেরের জন্মদিন ২২ অক্টোবর হওয়ার কারণে সবাই চেয়েছিল ইরেশ যাকের যেন একদিন আগে জন্মায়।

কিন্তু ২২ অক্টোবরেরও ১৫ দিন পর, অর্থাৎ ৬ নভেম্বর, রাত আটটায় জন্মগ্রহণ করেন ইরেশ যাকের। এমনই মজার অনুভূতি ব্যক্ত করে আলী যাকের গমমাধ্যমে জানিয়েছেন ‘আমার জন্ম একইদিন রাত ১০টায়। সে হিসেবে বাবার চেয়ে ছেলেকে বড় বলাই যেতে পারে।’

গোটা যাকের পরিবারই অভিনয় শিল্পের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত এবং অভিনয় জগতে তাদের অবদান অনস্বীকার্য। এমন কি আলী যাকের-সারা যাকের দম্পতির আরেক সন্তান শ্রেয়া যাকের, তিনিও অভিনয়ের সঙ্গে সম্পৃক্ত।

মঞ্চে আলী যাকেরের শুরুটা ১৯৭২ সালে। আরণ্যক নাট্যদলের হয়ে মামুনুর রশীদের নির্দেশনায় মুনীর চৌধুরীর ‘কবর’ নাটকে প্রথম অভিনয় করেন তিনি।

একই সালের মাস নাগাদ খান আতাউর রহমানের নির্দেশনায় ‘বুড়ো শালিকের ঘাড়ে রোঁ’ নাটকেও অভিনয় করেছিলেন, যে নাটকের প্রথম মঞ্চায়ন হয়েছিল ওয়াপদা মিলনায়তনে। আলী যাকের অভিনীত বহুল জনপ্রিয় কিছু মঞ্চ নাটক হচ্ছে, ‘দেওয়ান গাজীর কিসসা’, ‘গ্যালিলিও’, ‘কবর’ প্রভৃতি।

টিভিতেও রয়েছে আলী যাকের অভিনীত বহুল জনপ্রিয় কিছু নাটক। ‘আজ রবিবার’,‘অয়ময়’, ‘বহুব্রীহি’,‘পাথর সময়’- আলী যাকের অভিনীত এ নাটকগুলো দর্শক হৃদয়ে আজও গেঁথে রয়েছে। অপর দিকে ইরেশ যাকেরও নাটক ও সিনেমায় সমানতালে অভিনয় করছেন।

শাহরুখের সম্পত্তি দেখে অবাক আমির খান!

শাহরুখ খান ও আমির খানের মধ্যে বছরের পর বছর ধরে প্রতিদ্বন্দ্বিতা চলেছে । তাদের ভক্তরাও কে কাকে ছাড়িয়ে? এই অংক করেছেন অনেক। এখন আর সেরকম নেই। সম্প্রতি করণ জোহরেরে এক পার্টিতে একসঙ্গে দেখা গেছে তাদের। এরই মধ্যে শাহরুখ খানের বাড়িও গিয়েছিলেন আমির। ঘুরে এসে শাহরুখের সম্পত্তির বর্ণনা দিয়েছেন তিনি।

শাহরুখ খানের সম্পত্তি দেখে চমকে গেছেন আমির খান। সংবাদমাধ্যমের কাছে আমির বলেন, ‘আমি শাহরুখ খানকে একজন তারকা হিসেবে দেখি। আমি তারকা নই। শাহরুখ সুপুরুষ, চার্মিং ও সুন্দর পোশাক পরেন। আমি তার বাড়ি গিয়েছিলাম। তার ওয়্যারড্রোব দেখলাম। আমার গোটা বাড়িটার সমান তার ওয়্যারড্রোব।’

আমির-সালমান-শাহরুখের মধ্যে প্রতিযোগীতা নিয়ে অনেক আলোচনা সমালোচনা হয়ে আসছে বলিউড পাড়ায়। কিন্তু আমির জানান, তিনি কখনও শাহরুখ ও সালমানকে নিজের প্রতিযোগী ভাবেন না।

এমনকী, রাকেশ শর্মার বায়োপিকে অভিনয় করার জন্য শাহরুখকে নেওয়ার পরামর্শ আমিরই দিয়েছিলেন। এই বিষয়ে আমির বলেন, ‘আমি স্ক্রিপ্টটা (রাকেশ শর্মার বায়োপিক) শুনেছিলাম। আমার ভাল লেগেছিল। এটা সত্যি যে আমি তার পরে শাহরুখকে ফোন করে বলেছিলাম তার স্ক্রিপ্টটা দেখা উচিত। শাহরুখেরও ভাল লেগেছে জেনে আমি খুশি হয়েছি।’

আপনার মতামত