চিত্র বিচিত্র

লঞ্চেই বাসর!

লঞ্চেই বাসর- বিয়ের প্রথম রাত মানে ‘বাসর রাত’। এই ব্যাপারটার প্রতি মানুষের একটা আলাদা ‘ইন্টারেস্ট’ আছে। কারণ, নতুন বিয়ে করা স্বামী-স্ত্রী জীবনে প্রথম বারের মতো একই ঘরে একসাথে থাকে। তারা কিভাবে প্রথমে কথা বলা শুরু করে? কিভাবে কি হয়? এইসব জানতেই মানুষের প্রচুর আগ্রহ।

তবে সেই বাসর রাতটি যদি হয় কোনো লঞ্চের ভেতরে তাহলে কেমন হয়, ভাবুনতো! কথাটি শুনতে হয়তো অবাক লাগছে। অবাক লাগারই কথা। তবুও এটাই সত্যি যে, এমনই একটি বাসর সাজানো হয়েছে ভোলা টু ঢাকার বিলাসবহুল ক্রিস্টাল ক্রুজ লঞ্চে।

তবে এটি কোনো বাস্তব বিয়ের বাসর ঘর নয় এটি ভোলার ছেলে ইফতেখারুল ইসলাম জনের রচনা ও পরিচালনায় ‘অপেক্ষার শেষ সময়’ নাটকের একটি দৃশ্য। নাটকটি বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) রাত ৮টায় বেসরকারি টেলিভিশন আরটিভি-তে প্রচার হয়।

নাটকটি করা হয়েছে দ্বীপজেলা ভোলার নামকরা মিয়াজি বাড়ি ও ক্রিস্টাল ক্রুজ লঞ্চে। এতে দেখা যায়, ভোলা জেলা শহরের পার্শ্ববর্তী এলাকায় শহরের মতোই উন্নত একটি গ্রাম। গ্রামের বড় বাড়িগুলোর মধ্যে মিয়াজি বাড়ি বেশ নাম করা। সে বাড়ির আঃ বাছেদ মিয়াজি ইউনিয়ন পরিষদ মেম্বার থাকাকালীন একজন প্রতিবেশীকে নিয়ে একদিন রাতে বাড়ি ফেরেন।

চলার পথেই হঠাৎ শিশুর কান্নার আওয়াজ পান। কাছে গিয়ে দেখেন এক বছর বয়সী একটি মেয়ে শিশু কাঁদছে। শিশুটিকে কোলে নিয়ে নিজের চোঁখের জল ধরে রাখতে পারেননি। শিশুটিকে বুকে জড়িয়ে নিয়ে যায় নিজের বাড়িতে। আজ সেই শিশুটি হাওয়াইন গিটারে স্বর্ণপদক নিয়ে ভোলায় আসছে।

সন্ধ্যায় লঞ্চে এসে কেবিনে ব্যাগ রেখে বাইরে দাঁড়ায় সাজিদ। কিছুক্ষণ পর চোখে পড়ে অষ্টাদশী কন্যা তুলিকে। রাতে লঞ্চের ক্যান্টিনে যেতে গিয়ে আবারও দেখা হয় তাদের। কথোপকথোনে তার বড় বোনের কাছে সাজিদ জানতে পারে তুলি হাওয়াইন গিটারে স্বর্ণপদক পেয়েছে। লঞ্চ থেকে নেমে জোনাল অফিসে প্রবেশ করে সাজিদ। কাজে মন বসছে না তার। চোখের সামনে শুধু তুলির মুখ ভাসে। ভালোবেসে ফেলেছে মেয়েটাকে। মা সারাদিন বিয়ে বিয়ে করে। এবার মায়ের ইচ্ছা পূরণ হবে।

একদিন সুযোগ করে কথা বলার চেষ্টা করে সাজিদ। স্থানীয় মাস্তান টাইপের এক ছেলে পছন্দ করতো তুলিকে। সেই ছেলে লাঞ্ছিত করে সাজিদকে। তাতে তুলির মনে দাগ কাটে।

অবশেষে দেখা যায়, স্থানীয় মামুন নামে এক ছেলের সঙ্গে তুলির বিয়ে ঠিক করে তার পরিবার। আর মামুন সাজিদের কথা জানতে পেরে বাসর ঘরে এসে তুলিকে তার ভালোবাসার কাছে ফিরে যেতে বলে। এরপর ঘটতে থাকে নাটকীয় সব ঘটনা। এমন গল্প নিয়েই নির্মিত হয়েছে ‘অপেক্ষার শেষ সময়’।

ভোলার ছেলে ইফতেখারুল ইসলাম জনের রচনা ও পরিচালনায়, এমবিএইচ রাজু প্রযোজনায় এবং ফরহাদ হোসাইন এর ক্যামেরায় নাটকটিতে অভিনয় করেছেন তরুণ প্রজন্মের জনপ্রিয় অভিনেতা সজল, প্রসন্ন আজাদ, মম, ভোলার আবু সাঈদ লিটন, তালহা তালুকদার (বাঁধন), ইভান তালুকদার, জয়া গাঙ্গুলি, শিউলি, মোকাম্মেলসহ অনেকে।