খেলাধুলাজাতীয়

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টাইগারদের রানের পাহাড়

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে – শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে পাহাড় সমান রানের টার্গেট দিয়েছে টাইগাররা। ত্রিদেশীয় সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে মিরপুরে বাংলাদেশের বিপক্ষে মাঠে নামে শ্রীলঙ্কা। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভার খেলে ৭ উইকেট হারিয়ে পাহাড় সমান রান করে বাংলাদেশ। হাথুরুর লঙ্কাকে জিততে হলে করতে হবে ৩২১ রান।

এর আগে হাই ভোল্টেজ এই ম্যাচটি শুরু হয় দুপুর ১২টায়। শুক্রবার (১৯ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় মিরপুর শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমেই উড়ন্ত সূচনা করেন টাইগার দুই ওপেনার। ব্যাটিংয়ের শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ছিলেন এনামুল হক বিজয়। কয়েকবার জীবন পেয়ে ব্যক্তিগত ৩৫ রানে ফিরে যায় সাজঘরে। ১৫তম ওভারের শেষ বলে শেষ রক্ষা হয়নি এনামুল হকের। থিসারার শর্ট বল পুল করতে গিয়ে ব্যাটে খেলতে পারেননি তিনি। বল তার গ্লাভস ছুঁয়ে উইকেটরক্ষক নিরোশান ডিকভেলার গ্লাভসে বন্দি হয়। বিজর পরে মাঠে নামে সাকিব আল হাসন। মাঠে নেমেই তামিমকে সাথে নিয়ে লঙ্কা বোলদের আক্রমণাত্মক খেলতে থাকেন সাকিব আল হাসান। টানা দ্বিতীয় ম্যাচেও ফিফটি তুলে নেন তামিম। ক্যারিয়ারের ৪০তম ওডিআই ফিফটি পেতে বেশ ধীরভাবেই এগোচ্ছিলেন তামিম। ৭২ বল মোকাবিলা করে ৫টি চারে ফিফটির দেখা পান তামিম। ফিফটি করার পর আবারো লঙ্কা বোলাদের উপর চড়াও হয় তামিম। তারপর ইনিংসের ৩০তম ওভারে আকিলা ধনঞ্জয়ার বলে উইকেটরক্ষকের হাতে ক্যাচ আউট হয় তিনি। বক্তিগত ৮৪ রান করে ফিরে যায় সাজঘরে। তামিম আউট হওয়ার পর মুশফিককে সাথে নিয়ে বাংলাদেশর রানের চাকা সচল করেন অল রাউন্ডার সাকিব আল হাসান। তুলে নেন ক্যারিয়ারের ৩৫তম হাফ সেঞ্চুরি। এর একটু পরে সাকিবের জুটি ভাঙেন লঙ্কান বোলার আসেলা গুনারত্নে। বোলিংয়ে ফিরে বিদায় করলেন সাকিব আল হাসানকে। স্লো মিডিয়াম পেস উড়িয়ে মারতে গিয়ে ব্যর্থ হয়েছেন সাকিব। ফিরে যাওয়ার আগে করে ৬৩ বল থেকে ৬৭ রান। তবে মাঠে নেমে ব্যার্থতার পরিচয় দিয়ে গেছে মাহামুদুল্লা রিয়াদ। সাবই যখন ব্যাট হাতে আলো ছাড়াচ্ছে তখন মাহামুদুল্লা ২৩ বলে ২৪ রান করে ফিরে গেছে সাজ ঘরে।

এদিকে ক্যারিয়ারে ২৮তম হাফ সেঞ্চুরি করে বেশিক্ষণ মাঠে থাকতে পারেনি মুশফিকুর রহিম। থিসারা পেরেরা বলে বোল্ড হয়ে যায় তিনি। সাজঘরে ফিরার আগে করেন ৫২ বলে ৬২ রান। যার মধ্যে চারটি বাউন্ডারি ও একটি ওভার বাউন্ডারি রয়েছে। মুশফিক আউটের পর মাঠে নামার কথা ছিলো নাসির হোসেনের কিন্তু তার পরির্বতে মাঠে নামে নড়াইল এক্সপ্রেস ৫ বলে ৬ রান করে তিনিও ফিরে যায় সাজঘরে। তারপর নাসির হোসেন নেমেও পারেনি কিছু করতে ১ বলে শূন্য রান করে ফিরে যায় সাজঘরে। এরপর সাইফুদ্দিন ও সাব্বির রহমানের ব্যাটিং নৈপূণ্যে বড় সংগ্রহ করে টিম-টাইগারা

উভয় দলই নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নেমেছে। এর আগে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আট উইকেটের জয় পেয়েছিল টিম-টাইগাররা। আর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১২ রানে হেরেছিল হাতুরুর শ্রীলঙ্কা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ: ৩২০/৭ (৫০ ওভার)।

ব্যাটিং: সাইফউদ্দিন (৬*), সাব্বির রহমান (২৪*)

আউট: এনামুল হক বিজয়,তামিম ইকবাল,সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুশফিকুর রহিম, মাশরাফি বিন মর্তুজা।

টার্গেট: ৩২১

বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল, এনামুল হক বিজয়, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সাব্বির রহমান, নাসির হোসেন, মাশরাফি বিন মুর্তজা, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, রুবেল হোসেন ও মু্স্তাফিজুর রহমান।

শ্রীলঙ্কা একাদশ: উপুল থারাঙ্গা, কুশল মেন্ডিস, দিনেশ চান্দিমাল, কুশল পেরেরা, থিসারা পেরেরা, আসেলা গুনারত্নে, নিরোশান ডিকভেলা, সুরাঙ্গা লাকমাল, নুয়ান প্রদীপ, আকিলা ধনঞ্জয়া, ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা।