সালমানের সাজা ঘোষণার পর খাওয়া-দাওয়া বন্ধ করে দিয়েছিল শিশুটি!

সালমানের সাজা  – তারকা সালমান খান যে শুধু বড়দের কাছেই জনপ্রিয়, এ ধারণা ভুল। ছোট শিশুরাও সালমানের বিশাল ভক্ত। দিল্লির ছয় বছর বয়সী মেয়ে আনিয়া। সালমানের প্রতি আনিয়ার ভালোবাসা এতটাই গভীর যে বিরল প্রজাতির কৃষ্ণসার হরিণ শিকারের দায়ে সালমানের পাঁচ বছরের সাজা ঘোষণার পর খাওয়া-দাওয়া বন্ধ করে দিয়েছি মেয়েটি।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে প্রকাশ, যোধপুরে সালমানের মুক্তির জন্য যে আন্দোলন করা হচ্ছে সেখানে প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়মিত দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যাচ্ছে মেয়েটিকে। খাওয়া-দাওয়া বন্ধ করে দেওয়ার কারণে আজ সংজ্ঞাহীন হয়ে পড়ে মেয়েটি। মেয়েটির বাবা-মা জানান, সালমানের প্রতি তাঁর অসীম ভালোবাসা রয়েছে তার। আনিয়া বলেছে সালমান মুক্তি পাওয়া না পর্যন্ত সে কোনো খাবার খাবে না এবং স্কুলেও যাবে না।

১৯৯৮ সালের ১ ও ২ অক্টোবর যোধপুরে ‘হাম সাথ সাথ হ্যায়’ সিনেমার শুটিংয়ের মাঝে দুটি আলাদা জায়গায় দুটি কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা করেছিলেন সালমান। রাজস্থানের কঙ্কানি এলাকায় গ্রামবাসী জানায়, গুলির শব্দ শুনে তাঁরা সালমানের জিপসি গাড়িটিকে ধাওয়া করেছিল। সেই সময় মামলার অন্য অভিযুক্ত সাইফ আলী খান, টাবু, নিলম ও সোনালি বেন্দ্রে গাড়িতেই ছিলেন। আর গাড়িটির চালকের আসনে ছিলেন সালমান। প্রবল গতিতে গাড়ি ছুটিয়ে পালিয়ে যান তাঁরা।

একই রকম পোস্ট
Comments
লোড হচ্ছে...